ঢাকাশনিবার, ১৩ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রাত ১:১৬

প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অসাদাচরন ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

বেতাগী প্রতিনিধি
মার্চ ২৩, ২০২২ ১০:১৮ অপরাহ্ণ
পঠিত: 330 বার
Link Copied!

সরকারি অর্থ আত্মসাত ও অসাদাচরনসহ একাধিক অভিযোগ উঠেছে বরগুনার বেতাগীর দেশান্তরকাঠী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোসা. রোজিনা আক্তারের বিরুদ্ধে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, উপজেলার বিবিচিনি ইউনিয়নের দেশান্তরকাঠী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোসা. রোজিনা আক্তার বিদ্যালয়ে যোগদানের পর প্রতিষ্ঠানের একাধিক খাতের অর্থ আত্মসাত,কমিটি ও শিক্ষকদের সাথে অসাদাচরণ এবং মাসের পর মাস স্কুল ফাঁকি দিয়ে আসছেন। ২০১৮ থেকে ২০২২ এ তিন অর্থ বছরে বিদ্যালয়ের অনুকূলে ক্ষুদ্র মেরামত,রুটিন মেইন্টেন্যান্স ও অন্যান্য খাতে ৪লক্ষ ৫০হাজার টাকা সরকারি বরাদ্দের নামে মাত্র কাজ করেই আত্মসাত করেন।

একাধিক শিক্ষক অভিযোগ করেন, প্রধান শিক্ষকের অসাদাচরণে তারা অতিষ্ঠ ও ইচ্ছেমাফিক স্কুল করেন। সরকারি নির্ধারিত সময়ের পরিবর্তে কখনো সকাল ১১ কিংবা দুপুর ১২ টায় স্কুলে আসেন আবার ২ টা না পেরুতেই স্কুল ত্যাগ করেন। ম্যানেজিং কমিটি কিংবা সহকর্মিরা কেউ এর প্রতিবাদ করলে কমিটির লোকজনদের হেয় প্রতিপন্ন এবং সহকর্মিদের নানাভাবে হয়রাণি করেন।

এ বিষয় স্থানীয় উপজেলা শিক্ষা অফিসে মৌখিক ও লিখিত অভিযোগ দিয়েও কোন প্রতিকার না পাওয়ায় অবশেষে চলতি মাসে ম্যানেজিং কমিটির বর্তমান ও সাবেক সভাপতি সহ ৮সদস্য প্রাথমিক গণশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন।

দেশান্তরকাঠী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোসা. রোজিনা আক্তার মুঠোফোনে বলেন, আমি অসুস্থ। ছুঁটিতে রয়েছি। এ নিয়ে পরে কথা বলা যাবে। আর এসব অভিযোগ মিথ্যা ও বানোয়াট।

বেতাগী উপজেলা শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মিজানুর রহমান খান বলেন, ইতোমধ্যে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সরেজমিনে গিয়ে এ বিষয়ে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। যতদ্রুত সম্ভব তদন্ত শেষে প্রতিবেদন পাঠানো হবে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।