ঢাকামঙ্গলবার, ৬ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, সন্ধ্যা ৭:১৫

বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিবাদে গর্জে ওঠে বরগুনা

আনোয়ার হোসেন মনোয়ার, জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
আগস্ট ১৫, ২০২২ ৫:৩০ অপরাহ্ণ
পঠিত: 78 বার
Link Copied!

“যতো দিন রবে পদ্মা-মেঘনা
গৌরী যমুনা বহমান,
ততোদিন রবে কীর্তি তোমার
শেখ মুজিবুর রহমান”
(অন্নাদাশঙ্কর রায় কবির কবিতা থেকে নেওয়া)

কলংকিত, রক্তাক্ত ১৫ই আগস্ট, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর সপরিবার হত্যার প্রতিবাদে গর্জে উঠেছিল সাগরপাড়ের বরগুনা।

বরগুনা শহরের বাজার রোডের বাবু জ্ঞানরঞ্জন ঘোষের ঐতিহ্যবাহী সেই টিনশেড বাড়িটি আজও কালের স্বাক্ষি হয়ে অনেকটা জরাজীর্ণ অবস্থায় টিকে আছে।

মহান স্বাধীনতা যুদ্ধ পরবর্তী সময়ে তৎকালীন এ বাড়িটি ছিল স্বাধীনচেতাকামী, মুক্তিকামী মানুষের বিচরণের একমাত্র ঠিকানা। বিশেষ করে প্রতিদিন সকাল-দুপুর- বিকেল-সন্ধ্যা-রাত এক কথায় প্রতিটি মূহুর্তই এই বাড়িটি উন্মুক্ত ছিল আওয়ামীলীগ, ন্যাপ, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দের সমাগম।

বঙ্গবন্ধু সপরিবারে হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন বরগুনার স্বাধীনচেতা বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দসহ ছাত্রসমাজ। বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর খবর শুনে বিশেষ করে বাবু জ্ঞানরঞ্জন ঘোষের এই ঐতিহাসিক বাড়িতে সকাল ৮টায় ছাত্রলীগ ও ছাত্র ইউনিয়নসহ অন্যান্য নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে প্রতিবাদসভা অনুষ্ঠিত হয়। বরগুনা শহর নিয়ন্ত্রন ও সর্বাক্ষনিক যোগাযোগ রেখেছেন তৎকালীন মহাকুমা প্রশাসক সিরাজউদ্দিন আহমেদ ও তৎকালীন মহকুমা ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ জাহাঙ্গীর কবীর।

এছাড়াও হত্যার প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত ছিলেন ছাত্রলীগের সুভাল কৃষ্ণ তালুকদার, অমল কৃষ্ণ তালুকদার (নন্দ), প্রায়ত স্বপন কুমার সরকার, প্রায়ত মানিক মন্ডল, টিও জাহাঙ্গীরসহ আরো অনেকে। এছাড়া ছাত্র ইউনিয়নের ছিলেন মো. শাহজাহান মিয়া, সুখরঞ্জন শীল, গাজী মোতালেব, সৈয়দ গোলাম রব, গোলাম মোস্তফা পান্না, আবুল হোসেন তালুকদার, মালেক খানসহ আরো অনেকে।

সভাশেষে বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিবাদে ব্যাপক কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়। পরদিন ১৬ আগস্ট সকালে বরগুনা কলেজ (বর্তমান বরগুনা সরকারি কলেজ) থেকে বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিবাদে ঝটিকা মিছিল বের হয়। এ আন্দোলন কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ করে ছাত্র সংসদ, ছাত্রলীগ ও ছাত্র ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ। সেদিন তৎকালীন ছাত্রলীগ নেতা এ্যাড. ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুসহ অনেকেই ঢাকাতে ছিলেন।

এ্যাড. ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু বলেন, (১২ আগস্ট , ১৯৭৫) বঙ্গবন্ধুর সাথে আমার শেষ দেখা হয়েছিল। তখন তিনি আমার সাথে বরগুনার উন্নয়ন বিষয়ে নানান আলোচনা করেন। এটাই ছিল তাঁর সাথে আমার শেষ দেখা। পরে ১৪ আগস্ট আমি আব্দুর রশীদকে নিয়ে তৎকালীন কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রব সেরনিয়াবতের ঢাকাস্থ বাসায় যাই এবং এলাকার বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে তাঁর সাথে গভীর রাত পর্যন্ত আলোচনা করি। এক পর্যায়ে তিনি আমাদের তাঁর বাসায় থাকতে বলেন। কিন্তু আমরা না থাকায় আজও বেচেঁ আছি। পরবর্তীতে বরগুনায় এসে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশ ও নানা কর্মসূচির আয়োজন করি।

বঙ্গবন্ধুর হত্যার প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে জেলে গেলেন প্রায়ত সিদ্দকুর রহমান (এমপি), প্রায়ত এ্যাড. নুরুল ইসলাম সিকদার, এ্যাড. ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু, জাহাঙ্গীর কবীর, প্রায়ত ইউনুচ শরীফ, মোসলেম শরীফ, মোতালেব মৃধা, সুখ রঞ্জন শীল, বেতাগীতে প্রায়ত আঃ মন্নান মৃধা, প্রায়ত নাজেম আলী, আমতলীতে নুরুল ইসলাম পাশা তালুকদার, প্রায়ত ঝন্টু তালুকদার, পাথরঘাটায় প্রায়ত মজিবুল হক এছাড়া আরো অনেকে।

সুভাল কৃষ্ণ তালুকদার জানান, বঙ্গবন্ধুর হত্যার খবর শুনে আমরা ছাত্রলীগ-ছাত্র ইউনিয়নসহ অন্যান্যরা একত্র হই বাবু জ্ঞান রঞ্জন ঘোষের বাড়িতে এবং প্রতিবাদসভা ও বিভিন্ন কর্মসুচি গ্রহণ করি। আমাদের এলাকার ছাত্রনেতা আনোয়ার হোসেন মনোয়ার ভাই ঢাকা বিশবিদ্যালয় জহুরুল হক হলে ১৫৬ নং রুমে থাকতেন। সেখানে থেকে তিনি বরিশালের যুবনেতা এফ আর এম নাজমুল আহসান (মিজান) ও ছাত্রনেতা এনায়েত হোসেন, পটুয়াখালীর ছাত্রনেতা খসরু ও বরগুনাতে আনোয়ার হোসেন মনোয়ার, নন্দ তালুকদার ও ছাত্র ইউনিয়নের মোতালেব গাজী, সৈয়দ গোলাম রব এর সাথে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিভিন্ন কর্মসুচি সফল করার জন্য আমাদের দিক নির্দেশনা দিতেন এবং মাঝে মাঝে এলাকায় এসে সর্বশেষ খবর নিতেন। জহুরুল হক হল এর ১৫৬ নং রুম-ই ছিলো তখনকার সময়ে দক্ষিণ অঞ্চলের ছাত্র রাজনীতি নিয়ন্ত্রণের একটি অফিস।

সুভাল কৃষ্ণ তালুকদার আরো জানান, আমাদের সার্বক্ষণিক আরও নিরাপত্তা প্রদান ও পরোক্ষভাবে বিভিন্ন কর্মসূচিতে সহায়তা করেন বরগুনায় সরকারি কর্মকর্তাদের মধ্যে মহকুমা পুলিশ কর্মকর্তা ফারুক হোসেন, ত্রাণ কর্মকর্তা বিপ্লব শর্মা, সাব রেজিষ্টার আজগর আলী। পরবর্তীতে স্বৈরশাসনামলে বরগুনায় যোগদান করেন মহকুমা প্রসাশনিক কর্মকর্তা প্রয়াত আ. হামিদ খান ও সদর থানার দারোগা প্রয়াত ইয়াছিন আলী খান।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।