ঢাকাশুক্রবার, ১২ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রাত ১১:৪২

বামনায় বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত, কৃষির ব্যপক ক্ষতি

বামনা প্রতিনিধি
মে ২০, ২০২২ ১২:১৭ পূর্বাহ্ণ
পঠিত: 115 বার
Link Copied!

বরগুনার বামনা উপজেলার বিষখালী নদী তীরবর্তী পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্মিত বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে বিস্তীর্ন এলাকা প্লাবিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৯ মে) দুপুরে চেঁচান গ্রামে দেখা যায় এমন চিত্র। পূর্নিমার প্রভাবে বিষখালী নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রতিনিয়ত জোয়ারে তলিয়ে যাচ্ছে আশপাশের অন্তত ৬টি গ্রামের ফসলী জমি, মাছের ঘের ও রাস্তাঘাট। ফলে চরম ক্ষতির মুখে পড়েছেন নদীতীরের প্রান্তীক চাষীরা।

স্থানীয়রা জানান, গত ১৫ দিন পূর্বে ওই বেড়িবাঁধ ভেঙ্গেছে। কয়েকদিন ধরে পূর্নিমার প্রভাবে সৃষ্ট জোয়ারে সেই ভাঙ্গন কবলিত স্থান দিয়ে প্রবল বেগে বিষখালীর পানি ঢুকছে লোকালয়ে। ফলে চেঁচানসহ কাটাখালী, বেবাজিয়াখালী, ঢুষখালী, চালিতাবুনিয়া ও সফিপুর এলাকার ফসলী জমি, মাছের ঘের ও রাস্তাঘাট পানিতে তলিয়ে যায়।

স্থানীয় কৃষকরা জানায়, মাঠে এখনো তাদের মুগডাল, মসুরডাল ও ভুট্টা রয়েছে। প্রতিনিয়ত দুই বার এসব ক্ষেত পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়বেন তারা।

বামনা উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, বিষখালী নদী তীরবর্তী ৬টি গ্রামে প্রায় ১০০ হেক্টর জমিতে এবছর মুগডালের আবাদ হয়েছে। এছাড়াও ১০ হেক্টর জমিতে ভুট্টা ও ৩০ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন প্রকার সবজির আবাদ করা হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শুধু চেঁচান এলাকাই নয় বিষখালী নদীর জোয়ারে উপজেলার চলাভাংগা, গুদিকাটা, দক্ষিন কাকচিড়া, দক্ষিন রামনা, খোলপটুয়াসহ অন্তত ১৫টি গ্রাম তলিয়ে যাচ্ছে।

চেঁচান গ্রামের বাসিন্দা মো. রুস্তুম আলী সরদার বলেন, ১৫ দিন পূর্বে এখানের বাঁধটি ভেঙ্গে যায়। আমরা বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। তারা এসে পরিদর্শন করে গেছেন। তবে মেরামতের কোন উদ্যোগ না নেওয়ায় আমরা এখন পানিতে তলিয়ে যাই।

স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান বলেন, বহুদিন হলো বাঁধটি ভেঙ্গে গেছে। আমরা পাউবোকে জানালেও মেরামত না করায় এখন ফসলী জমি, মাছের ঘের এমনকি বসত বাড়ি জোয়ারের পানিতে তলিয়ে যায়।

বামনা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান চৌধুরী কামরুজ্জামান সগির বলেন, চেঁচান গ্রামের বেড়িবাঁধটি দিয়ে বিষখালী নদীর জোয়ারের পানি ঢুকে লোকালয় প্লাবিত হচ্ছে। বিষয়টি বরগুনা পানি উন্নয়ন বোর্ডকে অবহিত করা হয়েছে। কিন্তু বাঁটি সংস্কারের কোন উদ্যোগ নিচ্ছে না কর্তৃপক্ষ।

বরগুনা পানি উন্নয়ন বোর্ড এর উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. খলিলুর রহমান জানান, চেঁচান গ্রামের বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে যাওয়ার বিষয়টি আমাকে কেউ অবহিত করেননি। খোঁজ খবর নিয়ে দ্রুত বাঁধটি সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হবে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।