ঢাকামঙ্গলবার, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ভোর ৫:১৮
আজকের সর্বশেষ সবখবর

গণপরিবহনে সাড়ে ৫ বছরে ধর্ষণ ৩৫৭, খুন ২৭

সৈকত সংবাদ
আগস্ট ৮, ২০২২ ১১:৩৫ অপরাহ্ণ
পঠিত: 93 বার
Link Copied!

২০১৭ থেকে ২০২২ সালের ৭ আগস্ট পর্যন্ত গত সাড়ে ৫ বছরে গণপরিবহন, অন্যান্য বাহন, বাসস্ট্যান্ড ও ট্রেন স্টেশনে ৪ হাজার ৬০১টি নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে ৩৫৭ জন ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এবং খুন হয়েছেন ২৭ জন।

সোমবার (৮ আগস্ট) ‘সেভ দ্য রোড’-এর এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

দেশের ৩১টি জাতীয় দৈনিক, বিভিন্ন সংবাদ সংস্থা ও টিভি চ্যানেলে প্রকাশিত ও প্রচারিত তথ্যের পাশাপাশি সেভ দ্য রোড-এর চেয়ারম্যান ও সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জেড এম কামরুল আনাম, প্রতিষ্ঠাতা মোমিন মেহেদী, মহাসচিব শান্তা ফারজানা, ভাইস চেয়ারম্যান বিকাশ রায়, জিয়াউর রহমান জিয়া, ঢাকা সাব এডিটরস কাউন্সিলের সহ-সভাপতি আনজুমান আরা শিল্পী, আইয়ুব রানাসহ দেশব্যাপী সংগঠনের স্বেচ্ছাসেবীদের তথ্যানুসারে এই প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে।

সংগঠনের মহাসচিব শান্তা ফারজানা বলেন, বাসস্ট্যান্ডগুলো স্বাস্থ্যসম্মত ও নিরাপদ না হওয়ার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে একশ্রেণির কুরুচিপূর্ণ মানুষ নারীদের পোশাক ও চলাফেরা নিয়ে যেমন বিভিন্নভাবে কটূক্তি করে, তেমনি নির্যাতন-নিপীড়ন করতেও পিছপা হয় না। পিছিয়ে নেই ট্রেন, লঞ্চঘাট বা বিমানবন্দরও।

বোরকা পরিহিত নারীরাই সবচেয়ে বেশি যৌন নির্যাতন-নিপীড়নের শিকার হন বলে সেভ দ্য রোড-এর এক জরিপে দেখা যায়। প্রতি ১০০ জন নারীর মধ্যে নিপীড়নের শিকার হন ৯৯ জন। তাদের মধ্যে বোরকা বা হিজাব পরিহিত নারীর সংখ্যা ৬৭ এবং অন্যান্য পোশাক পরিহিত নারীর সংখ্যা ৩২। এর নেপথ্য কারণ পুরুষদের হীন মানসিকতা, লেবাসধারী হলেও ধর্মীয় অনুশাসন না মানা এবং বিচারহীনতার সংস্কৃতিই এর জন্য দায়ী বলে মনে করেন সেভ দ্য রোড-এর মহাসচিব শান্তা ফারজানা।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ৫ বছর ৭ মাসে গণপরিবহন ও বাসস্ট্যান্ডে নির্যাতন-নিপীড়নের ঘটনা ঘটেছে ৩ হাজার ৩১৪টি, ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে ২১৭ এবং হত্যার শিকার হয়েছেন ১৬ জন। ট্রেন স্টেশন, ট্রেন, লঞ্চঘাট ও লঞ্চে ২২৯ জন নারী নির্যাতিত হয়েছেন, ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে ২৯টি এবং হত্যার শিকার হয়েছেন ৭ জন। আর প্রাইভেটকার-মাইক্রোবাস বা মোটরসাইকেলে ঘটেছে ৮৪১টি নির্যাতনের ঘটনা, ধর্ষিত হয়েছেন ৩৩৭ জন এবং হত্যার শিকার হয়েছেন ৪ জন।

গণপরিবহন, বাসস্ট্যান্ড, ট্রেন স্টেশনসহ বিভিন্ন পথে নির্যাতন, নিপীড়ন, ধর্ষণ ও খুন বন্ধের লক্ষ্যে সেভ দ্য রোড-এর পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্টদের প্রতি ৩টি সুপারিশ করা হয়েছে।

১. রাষ্ট্রীয়ভাবে নারীর প্রতি সর্বোচ্চ সম্মান প্রদর্শনে সকল শ্রেণি পেশার মানুষকে উদ্ভুদ্ধ করতে ‘নারীর প্রতি সম্মান’ শীর্ষক সচেতনতা তৈরি করা, সেখানে ধর্মীয় অনুশাসন, নীতি-আদর্শ-সভ্যতার আলোকে বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরতে হবে এবং তা বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচার এবং প্রথম শ্রেণি থেকে স্নাতকোত্তর শ্রেণির পাঠ্যবইয়ে সংযুক্ত করতে হবে।

২. মালিক, চালক, হেলপার, সুপারভাইজারসহ সংশ্লিষ্টদের অবশ্যই যাত্রীদের প্রতি আচরণ প্রশিক্ষণ এবং অসদাচরণ করলে শাস্তির ঘোষণা দিতে হবে।

৩. প্রতি ৫ কিলোমিটার অন্তর পুলিশ বুথ স্থাপন, সব সড়ক-মহাসড়ক ও সেতুকে সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় আনতে হবে।

প্রসঙ্গত, ‘সেভ দ্য রোড-এর অঙ্গীকার পথ দুর্ঘটনা থাকবে না আর’ স্লোগান নিয়ে আকাশ, সড়ক, রেল ও নৌপথ দুর্ঘটনামুক্ত করার লক্ষ্যে দেশের একমাত্র স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সেভ দ্য রোড ২০০৭ থেকে কাজ করে যাচ্ছে। দেশে সচেতনতা তৈরির পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবায় নিয়োজিত আছে সংগঠনটি।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।