ঢাকামঙ্গলবার, ৬ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, সন্ধ্যা ৭:২৩

জেলা ছাত্রলীগে উত্তেজনা

কাশেম হাওলাদার
জুলাই ২৫, ২০২২ ১:৩০ পূর্বাহ্ণ
পঠিত: 133 বার
Link Copied!

বরগুনা জেলা ছাত্রলীগে কমিটি ঘোষণার নিয়ে গুঞ্জনে বিক্ষোভ করেছে জেলা ছাত্রলীগ নেতা কর্মীদের একাংশ। রবিবার (২৪ জুলাই) বিকেল ৬ টার দিকে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনের সড়ক অবরোধ করে শতাধিক নেতা-কর্মী বিক্ষোভ প্রদর্শন করে।

পরে বিক্ষোভ মিছিলটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বরগুনা প্রেসক্লাবের সামনে সদর রোডে অবস্থান নেয়। এসময় টায়ারে আগুন ধরিয়ে ঘন্টাব্যাপী সড়ক অবরোধ করে শ্লোগান দিতে থাকেন তারা।

খবর পেয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের সড়ক অবরোধ করতে নিষেধ করেন। একইসাথে আগুন দেয়া টায়ার নিভিয়ে ওই সড়কের যান চলাচল স্বাভাবিক করেন।

বিক্ষোভে অংশ নেয়া বরগুনা জেলা ছাত্রলীগের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি হোসাইন মুরাদ বলেন, বরগুনা জেলা ছাত্রলীগের একটি কমিটি অনুমোদন হয়েছে যে কোনো সময় প্রকাশ করা হবে। শহরে এমন গুঞ্জন ও খবর ছড়িয়ে পড়েছে। এতে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা রাজপথে নেমে এসেছে। যেমন গুঞ্জন শুনছি যদি এরকম কমিটি ঘোষণা হয় তবে বরগুনা জেলা ছাত্রলীগ এ কমিটি মানবেনা। আমরা রাতের আঁধারের কমিটি মানবোনা। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শমভু ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্জ্ব জাহাঙ্গীর কবীরের সম্মতি, সুপারিশ ও পরামর্শক্রমে জেলা ছাত্রলীগের কমিটি দেয়ার কথা। কিন্ত সেটা না করে একজন দালালের মাধ্যমে কমিটি দেয়ার পাঁয়তারা চলছে। এটা আমরা মানবোনা।

জেলা ছাত্রলীগের আরেক সহ-সভাপতি সাবু কিবরিয়া বলেন, এর আগে যারা ছাত্রদল করত, যাদের পরিবার বিএনপির রাজনীতি করে তাদের জেলা ছাত্রলীগের কমিটিতে পদ দেয়ার চেষ্টা চলছে। তিরি আরো বলেন, গোপন সূত্রে আমরা জেনেছি, একজন দালাল সেইসব লোকজনকে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক করার পাঁয়তারা চলছে। আমরা এর প্রতিবাদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সাথে পরামর্শ করে তাদের সুপারিশে কমিটি দেয়ার দাবিতে আন্দোলন করছি। যদি রাতের আঁধারে দালালের কমিটি দেয়া হয় আমরা মানবনা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে জেলা ছাত্রলীগের এক শীর্ষ নেতা জানান, কমিটি ঘোষণা নিয়ে গুঞ্জন ছড়িয়েছে রেজাউল করিম রেজাকে সভাপতি ও তৌশিকুর রহমান ইমরাণকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি অনুমোদন হয়েছে। এতে ছাত্রলীগ নেতা কর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়েছে। সভাপতি পদ প্রত্যাশী সবুজ মোল্লা ও ইরফান আহমেদ বিশালের লোকজন এই বিক্ষোভে অংশ নিয়েছে। ওই ছাত্রলীগ নেতা বলেন, ‘ আমি মনে করি পদ প্রত্যাশীদের মধ্যে অনেকেই নেতৃত্বের যোগ্য এমন আছে। তাদের মধ্য থেকে বেস্ট দুজনকেই বেছে নেবে কেন্দ্র। ‘

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কর্মসংস্থান বিষয়ক উপ সম্পাদক খাদিমুল বাশার জয় বলেন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের প্রতি আস্থা রাখতে হবে। ওনারা কখনোই বিধি বহির্ভূতভাবে বিতর্কিতদের কমিটিতে স্থান দেবেন না। কমিটি প্রকাশ হওয়ার আগেই গুঞ্জনে কান দিয়ে বিক্ষোভ শোভনীয় নয়।

রুহান / অপু

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।