ঢাকারবিবার, ১৪ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, সন্ধ্যা ৬:৫৯

শ্বশুড়ের পাকা ধানে জামাইয়ের আগুন

কাজী রাকিব, পাথরঘাটা প্রতিবেদক
জানুয়ারি ৩০, ২০২২ ৮:৫৬ অপরাহ্ণ
পঠিত: 104 বার
Link Copied!

বরগুনা প্রতিনিধিঃ বরগুনার পাথরঘাটায় পারিবারিক বিরোধকে কেন্দ্র করে শ্বশুরের সাড়ে তিন একর জমির পাকা ধানে আগুন দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। রবিবার সন্ধ্যায় পাথরঘাটা থানায় জামাই রাজীবের বিরুদ্ধে ক্ষেতের ধান পুড়িয়ে ফেলার অভিযোগ দিয়েছেন  শ্বশুর ইব্রাহিম। রোববার (৩০ জানুয়ারি) ভোররাতে পাথরঘাটা উপজেলার চরদুয়ানী ইউনিয়নের বড় টেংরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী কৃষক ইব্রাহীম ফরাজীর বাড়ি উপজেলার বড় টেংরা গ্রামে। তার বাবার নাম মৃত হাশেম ফরাজী। মেয়ে জামাতা মো. রাজিবের বাড়ি বরগুনার ইটবাড়িয়া এলাকায়। তার বাবার নাম সোহরাব মৃধা।

প্রত্যক্ষদর্শী মসজিদের মোয়াজ্জিন মো. ইউসুফ আলী বলেন, ফজরের আজান দিতে মসজিদে যাওয়ার সময় ইব্রাহিমের বাড়ির মধ্যে ধানের আটিতে আগুন দেখতে পেয়ে চিৎকার দিলে ইব্রাহিমসহ আশপাশের লোকজন আসে। এলাকাবাসীর সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রণে এলেও সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে যায়। আমার ধারণা ধানের আঁটির চারপাশে আগেই কুটা দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়।

শ্বশুর ইব্রাহিম ফরাজী বলেন, ওই জমি আমি প্রতিবেশীদের কাছ থেকে বর্গা নিয়ে চাষাবাদ করেছি। ধান পাকার পর কেটে আঁটি করে বাড়িতে এনে স্তপ করে রেখেছিলাম। স্তপে প্রায় দুশ আঁটি ধান ছিল, যাতে ২০০ মন ধান আসত। একদিনের মাড়াই করার জন্য আনার মনস্থির করেছিলাম। কিন্ত সকালে উঠে দেখি আমার ধানের আটিঁ আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গিয়েছে। তিনি বলেন,‘ আমার মেয়ে কুলসুম বেগমের সঙ্গে জামাই রাজিব মৃধার দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক কলহ চলছিল। এ কারণে বেশ কয়েকদিন ধরে কুলসুম আমার বাড়িতেই অবস্থান করে। শনিবার রাতে আমার মেয়ের ফোনে ‘সকালেই তোর বাপের সবকিছু শেষ করে দিব, টের পাবি কাল’ এ রকমের একটি ম্যাসেজ পাঠায়। আমার সন্দেহ হয় যে, আমার জামাই রাজিব মৃধাই এ কাজ করেছে।
ইব্রাহীম বলেন, ‘আমার সবকিছুই শেষ হয়ে গেছে। এখন আমি নিঃস্ব হয়ে গেছি। জমির মালিকদের আমি কি বুঝ দিব।’

ইব্রাহীমের জামাতা রাজিব মিয়ার সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘ আমার সাথে স্ত্রী কুলসুমের কোনো বিরোধ নেই। আমি দেড় দুবছরেও শ^শুড়বাড়িতে যাইনি। এটা আমার বিরুদ্ধে মিথ্যে অভিযোগ। মুঠোফোনে খুদেবার্তা দেয়ার বিষয়টিও অস্বীকার করেন তিনি।

পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল বাশার বলেন, ঘটনার খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই সরেজমিন পরিদর্শন করেছি। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পারিবারিক বিরোধের কারণে জামাই শ্বশুরের ধানের আঁটিতে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে ফেলতে পারে। লিখিত অভিযোগ পেয়েছি,  আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।