ঢাকামঙ্গলবার, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ভোর ৫:৪৫
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ভেস্তে গেল সেই তরুণীর বিয়ের শর্ত, বদলে হলো জেল

মহিউদ্দিন অপু
মে ১৩, ২০২২ ১১:১৪ অপরাহ্ণ
পঠিত: 203 বার
Link Copied!

বিয়ের দাবিতে জামালপুর থেকে বরগুনায় এসে অবস্থান নেওয়া সেই তরুণী শিখা আক্তার মৌ (২৫)কে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। শুক্রবার (১৩ মে) দুপুরে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাদী পক্ষের আইনজীবী সাইমুল ইসলাম রাব্বি।

রাব্বি জানান, মঙ্গলবার (১০ মে) বরগুনার আদালতে মাহমুদুল হাসানের বাবা মোশাররফ হোসেন খান কথিত বিয়ের দাবিতে তাদের পরিবারকে অবরুদ্ধ করে অবস্থান নেয়ার অভিযোগ করেন ওই তরুণীর বিরুদ্ধে। ওইদিনই বেতাগী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ প্রদান করেন বরগুনার মূখ্য বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক মুহাম্মদ মাহবুব আলম। একইসঙ্গে এক সপ্তাহের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিলেরও নির্দেশ প্রদান করেন বিচারক।

তিনি আরো জানান, আদালতের নির্দেশ পেয়েও পুলিশ কোন ব্যবস্থা না নেওয়ায় বৃহস্পতিবার (১২ মে) বরগুনা আদালতে বাদী হয়ে ওই তরুণীসহ ৪/৫ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে একটি মামলা করেন মাহমুদুল হাসানের বাবা মোশাররফ হোসেন খান। শুক্রবার সকালে ওই মামলায় আদালত ওই তরুণীকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ প্রদান করেন।

মামলায় বিয়ের দাবিতে মাহমুদুল হাসানের ভাড়া বাসার তালা ভেঙে সন্ত্রাসীদের সহায়তায় ঘরে অবস্থান নেয়া, পরিবারকে অবরুদ্ধ ও ব্লাক মেইল করে বিয়ের কাবিন হিসেবে ২০ লাখ টাকা দাবি করে আত্মহত্যার হুমকি দেওয়াসহ একাধিক অভিযোগ করা হয়।

বাদী মোশাররফ হোসেন খান বলেন, শিখা আক্তার মৌকে আমি শর্ত দিয়েছিলাম তার আগের বিয়ের তালাকনামাসহ বৈধ অভিভাবক নিয়ে আসতে। কিন্তু তিনি তা আনতে ব্যর্থ হয়েছেন। এখানে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া ছাড়া আমার উপায় ছিল না।

এ ব্যাপারে বেতাগী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ আলম হাওলাদার বলেন, বৃহস্পতিবার চান্দখালীর বাসিন্দা মোশাররফ হোসেন বাদী হয়ে জামালপুরের সরিষাবাড়ীর আবদুর রহিমের মেয়ে শিখা আক্তার মৌ নামের এক তরুণীসহ অজ্ঞাত আরও চার-পাঁচজনকে আসামি করে একটি মামলা করেছেন। ওই মামলায় সকালে চান্দখালী এলাকায় অবস্থান নেওয়া তরুণীকে আটক করা হয়। পরে তকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২৯ এপ্রিল বরগুনার বেতাগী উপজেলার চান্দখালিতে ইউনিভার্সিটি পড়ুয়া মাহমুদ হাসানের ভাড়া বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অবস্থায় নেয় জামালপুরের তরুণী শিখা আক্তার মৌ। নিজেকে ঢাকার উত্তরা ইউনিভার্সিটির ছাত্রী দাবি করেন ওই তরুণী।

তরুণীর দাবি, বিয়ের প্রলোভনে মাহমুদুল হাসানের সঙ্গে ঢাকার একটি বাসায় স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে থাকতেন তারা। তিন বছর প্রেমের পর সম্প্রতি বিয়ের কথা বললে নানা অযুহাতে তাকে এড়িয়ে চলতে শুরু করেন মাহমুদুল। রোজার শুরুতে মাহমুদুল গ্রামের বাড়ি বরগুনায় চলে আসেন। বাড়িতে এসে প্রেমিক মাহমুদুল যোগাযোগ কমিয়ে দিয়ে তরুণীকে এড়িয়ে চলতে শুরু করেন।

তরুণী আসার খবরে ছেলে ও তার বাবা-মা আত্মগোপনে চলে যায়। পরে স্থানীয়রা ওই বাড়ির তালা ভেঙে একটি রুমে ঢুকিয়ে দেন ওই তরুণীকে। এক পর্যায়ে ৫ মে রাতে ছেলের বাবা-মা ও স্বজনরা ওই বাড়িতে ফিরে আসেন এবং ওই তরুণীকে পুত্রবধূ বানাতে তার প্রথম পক্ষের স্বামীকে তালাকের কাগজ ও অভিভাবকদের নিয়ে আসার শর্ত দেন ছেলের বাবা।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।